শিশুর-শারীরিক-এবং-মানসিক-বিকাশে-খেলনা-পাতি

শিশুর শারীরিক এবং মানসিক বিকাশে খেলনাপাতি

একটি শিশুর ব্রেইন ডেভলপমেন্ট, শারীরিক উন্নতি এবং মনন তৈরি হয় পারিবারিক প্রভাব এবং খেলাধুলার মাধ্যমে। বিশেষজ্ঞের মতে প্রাথমিক অবস্থায় শিশুর পাঁচ ধরনের উন্নতি সাধিত হয়ে থাকে, যেমন- মানসিক, বুদ্ধিবৃত্তিক, সামাজিক, আবেগিক এবং ভাষাগত। সাধারণত শিশুরা দু’ভাবে প্রভাবিত হয়। প্রথমত মানুষের দ্বারা দ্বিতীয়ত বস্তু বা খেলনা। তাই মানুষ নির্বাচনে যেমন সচেতন হবেন তেমনি খেলনা নির্বাচনেও হতে হবে সচেতন। কারণ সব ধরনের খেলনা শিশুর বিকাশে সহায়তা করে না। যেসব খেলনা শিক্ষা দেবে নতুন কিছু এবং চারপাশ সম্পর্কে তৈরি করবে ইতিবাচক মনোভাব সেগুলোই শিশুর হাতে তুলে দিতে হবে।

তাই আমাদের জানতে হবে কোন খেলনা ছোট্ট সোনামনির মানসিক এবং শারীরিক বিকাশে সহায়ক। আরও জানতে হবে কিডস ফ্রেন্ডলি ভালো মানের খেলনা কোথায় পাওয়া যায় দাম কত।

সফট টয়

ছবি: সফট টয়

নরম খেলনার বিকল্প কমই পাওয়া যায়। শক্ত এবং ধারালো খেলনার দ্বারা শিশু আঘাত পেতে পারে। শুন্য থেকে এক বছরের বাচ্চার জন্য নরম-কোমল খেলনা কিনতে পারেন। তবে মনে রাখতে হবে খেলনা যেন কালারফুল হয়। কারণ, বাচ্চারা রঙ্গিন জিনিসের প্রতি আকর্ষণ বোধ করে। এরকম খেলনা হতে পারে পুল স্ট্রিং এ্যানিমেল বাথ টয়, ইনফান্ট পাজেল, ইনফান্ট ক্রউল কুশন, পেনডেন্ট ডেকোরেটিভ সফট টয়, ক্যাপসুল পার্ক ডাইনোসোর টয়, কচ্ছপ পুস টয় ইত্যাদি।

শিক্ষামূলক খেলনা

ছবি: শিক্ষামূলক খেলনা

খেলনা যেন শুধুই খেলনা না হয়। এমন খেলনা কিনে আনুন যেগুলো শিশুর কল্পনা রাজ্যে সৃষ্টিশীল মানসপট তৈরি করে। বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষ সাধনে সহায়ক হয়। ২ বছর বয়স থেকেই এসব খেলনা দিতে পারেন। এমন কিছু খেলনার ছবি আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

এলফাবেট পাজেল

ছবি: এলফাবেট পাজেল

ছোটবেলায় বর্ণমালা শেখাতে কত কসরত করতে হয়। কিন্তু এ খেলনার মাধ্যমে শিশু আনন্দের সঙ্গে শিখে যাবে ভাষার মৌলিক উপাদান বর্ণমালা। এছাড়া ছবি মেলানো, বাড়ি মেলানো ইত্যাদি পাজল গেম রয়েছে। এগুলো শিশুর মেধা বৃদ্ধিতে টনিকের মতো কাজ করে।

কিউব

পাজল গেমের মতোই কিউব গেম। এটি কিছু রঙের সমন্বয়ে তৈরি। বলতে পারেন রঙ মেলানোর খেলা।

রেইনবো এন্ড এলফাবেট স্টেকিং কাপ

ছবি: রেইনবো এন্ড এলফাবেট

এ খেলনায় বিভিন্ন রঙের কতগুলো কাপ থাকে। কাপগুলোর মধ্যে গণিতের সংখ্যা লেখা থাকে। ধারাবাহিকভাবে সংখ্যা এবং রং মনে রাখতে এ খেলনা খুবই চমৎকার।

সুডোকু

ছবি: সুডোকু

এই খেলাকে গবেষকরা ব্রেইনগেম বলে আখ্যায়িত করেছেন। সুডকো মস্তিষ্কের বিকাশে খুবই সহায়ক। মনযোগী এবং কৌতূহলী করে তোলে।

রংতুলির খেলনা

রংতুলিতে শিশুদের মনের ভাষা ছবিতে প্রকাশ পায়। এতে শিশু অনেক আনন্দ পায়। নানা ধরনের আঁকাআকিঁর মাধ্যমে আপনার শিশুর সৃজনশীল প্রতিভা বিকশিত হবে।

সাবধানতা অবলম্বন করুন

যেকোন খেলনা শিশুর হাতে তুলে দিবেন না। বয়সের উপযুক্ততা এবং ব্যবহারের প্রক্রিয়া দেয়া আছে কিনা তা লেবেল দেখে নিশ্চিত হউন।

শিশুরা যেকোন জিনিস হাতে পেলেই মুখে দেয়ার চেষ্টা করে। তাই খুব ছোট খেলনা হাতে দিবেন না। গলার ভিতরে আটকে যাবার সম্ভাবনা থাকবে। খেলনা যাতে নোংরা না হয় এ বিষয়ে সাবধান হউন।

বৈদ্যুতিক খেলনা থেকে দূরে রাখাই ভালো। তবে বয়স একটু বেশি হলে ইলেক্ট্রিক খেলনা দেয়া যেতে পারে।

শিশু আঘাত পেতে পারে এমন খেলনা দেখতে সুন্দর হলেও কেনা থেকে বিরত থাকুন।

ভালো খেলনা কোথায় পাবেন

উপরের লেখাতে সেযব খেলনার কথা বলা হয়েছে তা কোথায় পাওয়া যাবে তা নিয়ে আপনার মনে প্রশ্ন তৈরি হতে পারে। রাজধানীর ছোট-বড় সব শপিং মলে খেলনা পাওয়া যায়। তবে ঘরে বসেও পছন্দের খেলনা কেনা যায়। এজন্য Jadroo Online Shop হতে পারে আপনার সঙ্গী। এখানে রয়েছে শিশুদের খেলনার বিশাল সমাহার। শিশুকে আনন্দময় শৈশব উপহার দিতে Jadroo.com চীন থেকে আমদানী করছে শিশুর ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে সহায়ক এমন সব খেলনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 15 =