Decorate your nest of peace

অপরূপ সাজে সাজিয়ে তুলুন আপন শান্তির নীড়

ঘর প্রতিটি মানুষেরই আপন অঙ্গন। সারা দিনের ক্লান্তি শেষে শান্তি পেতে ঘরই একমাত্র ঠিকানা। এই ঘরকে আমরা কত ভাবেই না সাজাই। মানুষের আপন কল্পনার প্রতিচ্ছবিই ফুটে ওঠে ঘরের সাজসজ্জায়। প্রতিটি ঘরেই ছোট-বড় অনেকগুলো রুম থাকে, যেমন- ড্রইং রুম, ডাইনিং রুম, বেড রুম, কিচেন, বারান্দা ইত্যাদি। প্রতিটি রুমের জন্যই চাই আলাদা আলাদা ডেকোরেশন। আজ আলোচনা করবো ঘর সাজানোর নানান দিক নিয়ে। আরও কথা বলবো ভালো মানের হোম ডেকোরেশন আইটেম কোথায় পাওয়া যায়। কোন অনলাইন শপ হোম ডেকোরেশন আইটেমের জন্য প্রসিদ্ধ। তবে তারও আগে জেনে নেয়া দরকার কোন রুম কিভাবে সাজাবেন।

ড্রইং রুম সাজানোর পথ ও মত

ঘরের অন্যান্য রুমের মধ্যে ড্রইং রুম খুবই গুরুত্বপূণ। কারণ, সাধারণত ঘরের প্রথম রুমটাই ড্রইং রুম। অতিথি বা যে কেউ ঘরে ঢুকেই এ রুমটি দেখে থাকে। তাই স্বাদ এবং সাধ্যের সমন্বয়ে আপনি সাজাতে পারেন মনের মতো করে। ফার্নিচার, পর্দা, মেঝ, দেয়াল এবং শৌপিচ সব কিছুতে নিয়ে আসুন নতুনত্বের ছোঁয়া। দেয়ালের কালারের সঙ্গে মিল রেখে আসবাবপত্রের কালার নির্বাচন করুন। দেয়ালে লাগিয়ে নিতে পারেন পছন্দ অনুযায়ী ওয়াল স্টিকার, ফটো ফ্রেম, ওয়ালমেট, দেয়াল ঘড়ি, ওয়াল পেপার। এছাড়াও দেয়ালে সেট করে নিতে পারেন ছোট ছোট র‌্যাক বা হ্যাঙ্গার। যাতে Indore Plant অথবা Show Piece রাখতে পারবেন। সোফাতে রাখুন মানানসই কুশন। বিভিন্ন টাইপের কুশন বাজারে পাওয়া যায়। যেমন- এ্যানিমেল সেপ কুশন, ফ্রুটস টাইপ কুশন, কার্টুন সেপ কুশন ইত্যাদি। তবে কুশন কভারের রং যেন কোন ভাবেই অতি রঞ্জিত না হয়। রঙের সমন্বয় কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সোফার পাশে Side Table এর ওপর একটি Flower Verse রাখতে পারেন। সেন্টার টেবিলেও একটি Crystal Flower Vase রাখতে পারেন। জানালায় ব্যবহার করুন পর্দা বা ভার্টিকেল ব্লাইন্ড। সিল্ক, নেট অথবা ঝালড় লাগানো পর্দা সাজগোজে যোগ করবে আলাদা মাত্রা। Window Curtain কে আরও আকর্ষণীয় করতে ব্যবহার করুন Curtain Tie বা Curtain Clip। ফ্লোরকে সাজাতে যেন ভুল না হয়। মেঝতে আকর্ষণীয় করতে ব্যবহার করুন ফ্লোর ম্যাট। টাইলস লাগানো মেঝতে প্রায়ই পিছলে পরার আশংকা থাকে। এজন্য ব্যবহার করতে পারেন Anti-Slip Floor mat.

আলোকসজ্জা ঘর সাজানোর জন্য অন্যতম বিবেচ্য বিষয়। এক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন এনার্জি সেভিং বাল্ব, এলইডি লাইট, সৌর বিদ্যুৎ চালিত বাতি। ঝাড় বাতিও ব্যবহার করতে পারেন ড্রইং রুমের সিলিংয়ে। বৈদ্যুতিক সুইচগুলোতে আনতে পারেন নতুনত্ব। এজন্য ব্যবহার করতে পারেন সুইচ স্টিকার। সুইচের পাশের লাগাতে পারেন মোবাইল স্ট্যান্ড। এতে মোবাইল চার্জ দেয়া খুবই সহজ হবে।

বেডরুম সাজান মনের মতো

বেডরুমের গুরুত্ব সবারই জানা। এ কক্ষের সাজসজ্জা সুনিদ্রা আনয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখে। বেডরুম মানেই খাট বা পালঙ্ক, বিছানার চাদর, বালিশ, লেপ-তোশক, কম্বল ইত্যাদি। আপনার পছন্দ মতো ডিজাইনের খাট আনিয়ে নিতে পারেন। বিছানার চাদর হতে হবে অবশ্যই আরামদায়ক। বিছানার চাদরে ফুটে উঠতে পারে আভিজাত্য। বেড শীটের রঙের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বালিশের কভার বা কুশন কভার ব্যবহার করুন। তবে ওভারঅল দেয়ালের রঙের সঙ্গেও একটা সমন্বয় রাখতে হবে। দেয়ালে লাগাতে পারেন আপনার পছন্দের ওয়াল স্টীকার। শীতের সময় কম্বল ছাড়া তো চলবেই না। তাই সাধ্যের মধ্যে ভালো মানের কম্বল কিনতে পারেন। রুমকে শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত রাখতে প্রয়োজন অনুযায়ী এয়ার কন্ডিশন সেট করে নিতে পারেন। এসি কেনার আগে কিছু বিষয় জেনে নেয়া অবশ্যই উচিত হবে। বেডরুমের মেঝোতে হালকা রঙের ফ্লোর ম্যাট ব্যবহার করুন। টাইলস লাগানো ফ্লোরে অনেক সময় পিছলে পরার সম্ভাবনা থাকে। এজন্য ব্যবহার করতে পারেন Anti-Slip Floor Mat ।

রান্নাঘর সাজাতে যা যা করবেন

রান্নাঘর যেকোন ঘরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কক্ষ। পরিবারের সদস্যদের সুস্থতা নির্ভর করে রান্নাঘরের পরিচ্ছন্নতার ওপর। যদি রান্নাঘরের পরিচ্ছন্নতা এবং সাজসজ্জা বিষয়ে উদাসীন থাকেন তবে স্বাস্থহানি ঘটার সম্ভাবনা ঠেকানো অসম্ভব হয়ে পরবে। রান্নাঘরে প্রায় ৬০ ভাগ জীবাণু তৈরি হয়। এজন্য সচেতনতার বিকল্প নেই।

বেসিন থেকে শুরু করা যাক। সিংক জীবাণু তৈরির অন্যতম যায়গা। তাই সিংক পানি জমিয়ে রাখা যাবে না। স্ক্রাবার বা মাজনি ভালোভাবে পরিষ্কার করুন। এ কাজের জন্য ব্যবহার করতে পারেন Kitchen Sink Silicon Storage Bag অথবা Kitchen Sink Adjustable Mini Strainer Organizer। রান্নাবান্নার প্রতিটি জিনিস আলাদা আলাদা সংরক্ষণ করতে ব্যবহার করুন Wall Cabinet বা Rack। এতে জায়গাও বাচবে সুন্দরও দেখাবে। চুলার উপরের অংশ অনেক বেশি পরিমাণ তেলতেলে হয়ে যায়। এ থেকে বাঁচতে ব্যবহার করুন Aluminuam Foil Gas Stove Burner Cover। রান্নাঘরের দেয়ালে লাগিয়ে নিন বিভিন্ন ফলমূল, মাছ-মাংস অথবা আপনার পছন্দের ছাপা সম্বলিত Wall Sticker বা Wallpaper। ডাইনিং টেবিল পরিচ্ছন্ন এবং সুন্দর রাখতে ব্যবহার করুন Table Mat। টেবিল বা খাবারের অতিরিক্ত তেল শোষণ করতে ব্যবহার করুন Oil Absorbent Paper। দেয়ালে একটি চার্ট লাগিয়ে রাখতে পারেন। যাতে খাবার রান্নার রুটিন বা রেসিপি লেখা থাকতে পারে।

বাথরুমের সাজসজ্জা

অন্যান্য রুমের মতো বাথরুমের ডেকোরেশনও গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বাথরুম এবং টয়লেট যেকোন ঘরের জন্য জরুরি। সাইজ, অবস্থান এবং জেন্ডার ভেদে বাথরুম বা টয়লেটের সাজ ভিন্ন হয়ে থাকে। বাথরুমের দেয়ালে অধিকাংশ লোকই টাইলস লাগায়। তবে আপনি চাইলে Wall Stickerলাগাতে পারেন। যেকোন বাথরুমে Bathroom Organizerবা wall-mounted storage rackঅবশ্যই লাগানো উচিত। এতে অনেক সুবিধা পাওয়া যাবে। গোসল এবং টয়লেটের যায়গা আলাদা রাখুন। টয়লেটের কমোড রাখতে হবে পরিপাটি। এজন্য কমোডে লাগান Commode Sticker। টয়লেটের ফ্লোরে ব্যবহার করুন Anti-Slip Floor Mat। টয়লেটকে জীবাণুমুক্ত রাখতে ব্যবহার করুন Toilet Cleaner। Tissue Trayএবং Dispenserলাগাতে ভুল করবেন না। এছাড়া আরও কিছু প্রয়োজনীয় টয়লেট সামগ্রী কিনে নিতে পারেন ইচ্ছে মতো।

বারান্দা সাজান মনের মতো

ঘরের এক কোণে ছোট্ট একটি বারান্দা মনানন্দে অনেক বড় ভূমিকা রাখে। চার দেয়ালের মাঝে বন্দি থেকেও যেখান থেকে দেখা যায় এক ফালি চাঁদ, শহরের বুকে উচু দালান, সড়ক এবং অন্যান্য হালচাল। তাই ব্যালকনিটা সুন্দর করতে একটু মনযোগ দিতে পারেন। বারান্দার চারপাশে লতা-পাতা, ফুলগাছ ইত্যাদি লাগিয়ে সবুজাভ ছায়া নিয়ে আসতে পারেন। এসব গাছ ছোট টবে লাগাতে পারেন। আবার দেয়ালেও লাগাতে পারেন অর্কিড প্লান্ট্। রাখতে পারেন ছোট একটা ফোয়ারা। শুকনো যায়গায় রাখতে পারেন ক্যাকটাস। ছোট একটা দোলনা চেয়ারও রাখতে পারেন। যাতে বসে উপভোগ করবেন জল সবুজের অপরুপ দৃশ্যপট।

এসব ছাড়াও আরও অসংখ্য উপদান ঘর সাজাতে আমরা ব্যবহার করে থাকি। এসব কিনতে হয় বাজারে অনেক ঘুরে ঘুরে। আবার অনেক সময় মনের মতো জিনিস পাওয়াও যায় না। এখন অনলাইনে ঘরে বসে পছন্দের জিনিস কেনা যায়। যাদরো তেমনই একটি অনলাইন শপ। যারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে জনপ্রিয় এবং নান্দনিক হোম ডেকর পণ্যগুলো সংগ্রহ করে আনে। আপনি বলতে পারেন Jadroo is the biggest Home Decor Supplier in Bangladesh. ওয়েবসাইট ভিজিট করে দেখে নিন কোনটা আপনার দরকার।

আলোচনা প্রায় শেষ। আপনার কেমন লাগলো কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না। গৃহসজ্জা বিষয়ে আরও জানতে আমাদের ব্লগ পড়ুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 − 5 =